Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

কি সেবা কিভাবে পাবেন

ক্রমিকনং

সেবা সমূহ

সেবা কিভাবে পাবে

০১

আদালত হতে আগত নতুন বন্দীদের কারা অভ্যন্তরে অবস্থান

আদালত হতে আগত নতুন বন্দীদের শ্রেনী বিন্যাস করতঃ যথাযথ আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়,

বিচারাধীন বন্দীদের নির্ধারিত তারিখে আদালতে হাজিরা নিশ্চিত করা হয়, বন্দীদের সাথে

রক্ষিত টাকা পয়সা ও মূল্যবান দ্রব্যাদি জেলারের নিকট যথাযথ হেফাজতে রাখার ব্যবস্থা করা হয়|

০২

অসহায়/দরিদ্র বন্দীদের বিনা খরচে আইনগত সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা করা

অসহায় অসচ্ছল বন্দীদের ন্যায় বিচার প্রাপ্তির লক্ষ্যে সরকারী কৌশলী নিয়োগের মাধ্যমে যথাযথ

আইনগত সহায়তা প্রদান করা হয়।

০৩

সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের জেল আপীল করা

অসহায় অসচ্ছল সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের সুবিচার প্রাপ্তিতে নির্ধারিত সময়ের মধ্য কারাগার হতে

উচ্চ আদালতে আপিল (জেল আপীল) দায়ের করা হয়|

০৪

বন্দীদের সুষ্ঠ ভাবে দেখা স্বাক্ষাত

আত্নীয়-স্বজন হাজতী বন্দীদের সাথে ১৫ দিন অন্তর, কয়েদী বন্দীদের সাথে মাসে একবার

এবং  ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও বিজ্ঞ আদালতের অনুমতি

স্বাপেক্ষে  দেখাকরানো হয়। ইহা ছাড়াও বন্দীদের সাথে তারকৌশলীকে দেখা সাক্ষাতের সুযোগ প্রদান

করা হয় এবং বন্দীদের সাথে দেখা করার জন্য জেল সুপারের বরাবরে আবেদন করতে হয়।

০৫

বন্দীদের পিসিতে টাকা জমাদান

কারাগারে আটক বন্দীদের ব্যক্তিগত তহবিলে (পিসি) অর্থ জমা রাখার প্রয়োজনে মানি

অর্ডার করতে পারবেন অথবা বন্দীর আত্নীয়-স্বজন সরাসরি তার পিসিতে অর্থ জমা দিতে

পারবেন কারাগারের  রিজার্ভ গার্ডে কর্ত্যরত প্রধান কারারক্ষীর সহযোগীতায় এই অর্থজমা নেওয়া হয়।

০৬

ওকালত নামাই স্বাক্ষর

ওকালতনামা স্বাক্ষরের জন্য কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে ওকালতনামা দাখিলের জন্য নির্ধারিত

বক্স রহেছে। নির্ধারিত সময় অন্তর বাক্স খুলে ওকালতনামা বন্দীদের স্বাক্ষরের জন্য কারাঅভ্যন্তরে

পাঠানো হয় এবং স্বাক্ষর শেষে রির্জাভ গার্ডের কর্তব্যরত প্রধান কারারক্ষীর মাধ্যমে স্বাক্ষরকৃত

ওকালতনামা বন্দীরকৌশলী/আত্মীদের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

০৭

জামিন প্রাপ্ত বন্দীদের যথাসময়ে মুক্তি প্রদান

আদালত থেকে প্রাপ্তমুক্তি/জামিনআদেশের প্রেক্ষিতে মুক্তিযোগ্য বন্দীদের নামের তালিকা প্রধান

ফটকের সামনে নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়, যাতে বাহিরে অপেক্ষমান আত্মীয়-স্বজনসহজে

বন্দীর মুক্তির বিষয়টি জানতে পারেন এবং যেসব বন্দীর মুক্তির/জামিনআদেশে ভুলপরিলক্ষিত

হয় এবং বিলম্বে আদেশ প্রাপ্ত হয় তাদের নামের তালিকাও প্রধান ফটকেরসামনে নোটিশ বোর্ডে

টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়,যাতে করেবন্দীর আত্মীয়-স্বজন অহেতুক দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা না করে চলেযেতে

পারে এবং মুক্তির আদেশ প্রাপ্তির পরে আদেশের সঠিকতা স্বাপেক্ষে বন্দীদের ছেড়ে দেয়া হয়।

০৮

সাজাপ্রাপ্ত কারাবন্দীদের বৃত্তি মূলক প্রশিক্ষন প্রদান

কারাগারে আটক বন্দীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিরুপন করতঃ তাদের আগ্রহ অনুসারে বিভিন্ন

ট্রেডে(তাঁত, মোড়া বানানো,কার্পেট বানানো, টিভি, রেডিও, ফ্রিজ, চার্জার লাইট মেরামত

ও গাবাদিপশু পালন, মৎস্য চাষ ইত্যাদি) প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় এবং যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ

প্রদানের মাধ্যমে বন্দীদের দক্ষ ও প্রশিক্ষিত করে গড়েতোলা হয় যাতে করে বন্দী সাজাভোগের

পর মুক্ত জীবনে গিয়ে নানা রকম পেশায় নিজেকে  নিয়োজিত করতে পারে|

০৯

চিকিৎসা সেবা

কারাগারে হাসপাতাল বিদ্যমান রয়েছে। কোন বন্দী অসুস্থহলে তাৎক্ষনিক ভাবে তাকে কারাহাসপাতালে

ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাপ্রদানকরাহয়।কোন জটিল বা দূরারোগ্য রোগে আক্রান্ত বন্দীদের

চিকিৎসার জন্য সহকারী সার্জন (কারা হাসপাতাল) এর পরামর্শক্রমে উন্নতচিকিৎসার জন্য

কারাগারের বাহিরে হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করাহয় এবং

মাদকসেবীবন্দীদেরসাধারবন্দীদের থেকে আলাদা করে পৃথক আবাসনের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা

সেবা প্রদান করা হয়|

১০

বিশ্রামাগারের ব্যবস্থা

কারাগারে বন্দীদের সাথে আগত সাক্ষাতপ্রার্থীদের জন্য বিশ্রামাগার রয়েছে। বিশ্রামাগারে পর্যাপ্ত

বসার ব্যবস্থা, বৈদ্যুতিক পাখা, বিশুদ্ধ খাবার পানি ও টয়লেটের সুব্যবস্থা রয়েছে। বাহির গেইটে

অনুসন্ধানে যোগাযোগ করে কারাগারের নিয়ম কানুন সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য জানা যাবে |

১১

বন্দীদের কল্যাণ মূলক কার্যক্রম

 

কারাগারে আটক নিরক্ষর বন্দীদেরকে প্রাথমিক শিক্ষা প্রদানের জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা কার্যক্রম

চালু রাখা হয়েছে। প্রত্যেক নিরক্ষর বন্দীকে বাধ্যতামূলকভাবে এই শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায়

আনা হয়েছে, যাতে করে কারাগার থেকে মুক্তির পর সামাজিক জীবনে ফিরে সুস্থ ও স্বভাবিক

জীবন যাপন করতেপারে।মরণব্যাধিHIV/AIDSএর ভয়াবহতা সম্পর্কে বন্দীদের সজাগকরাহয় এবং মরণব্যাধি

রোধকল্পে নানারকম পন্থা সম্পর্কে সচেতনকরাহয়। প্রতিনিয়ত বন্দীদের শৃংখলা বজায় রাখারজন্ যপ্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশনা  প্রদান করা হয়। নির্ধারিত তারিখে বন্দীদের হাজিরার নিমিত্তে কোর্টে প্রেরণ নিশ্চিত করা হয় ।বন্দীদের চিত্তবিনোদনের জন্য কারাভ্যন্তরে টিভি, রেডিও, ক্যারাম, লুডু, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন ইত্যাদির ব্যবস্থা রয়েছে।বন্দীদের চারিত্রিক সংশোধনের জন্য মোর্টিভেশনাল ক্লাসচালুরয়েছে|

১২

বন্দীদের ক্যান্টিন সুবিধা

 

কারা অভ্যন্তরে এবং বাহিরে বন্দীদের জন্য ক্যান্টিন ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে সুলোভ মূল্যে বন্দীরা চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও দৈনন্দিনপ্ রয়োজনীয় জিনিসপত্র জমাকৃত পি.সি হতে ক্রয় করতে পারেএবং

আত্নীয় স্বজনরা ও বাহির ক্যান্টিন হতে খাদ্যদ্রব্য ক্রয় করে বন্দীদের দিতে পারে।